freelancer-Khaled

Free =মুক্ত

Lancing=পেশা

Freelancing = মুক্তপেশা

অর্থাৎ, কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের অধীনে না থেকে কোন একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে স্কিল ডেভেলপ করে একটি ইনকাম ব্যবস্থা তৈরি করার নাম হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং।

সোজা ভাবে বললে, ফ্রিল্যান্সিং এমন একটি আলাদা মাধ্যম বা উপায়, যার দ্বারা আপনারা অনলাইন কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন। এমনিতে, একটি চাকরি (job) করা ব্যক্তিকে সকাল ১০ থেকে বিকেল ৬ টা পর্যন্ত অফিসে গিয়ে এক ধরণের কাজ করতেই হবে।

কিন্তু, freelancing এর মাধ্যমে কাজ করা লোকেরা স্বনির্ভর (self-employed) থাকেন। তাই, ফ্রিল্যান্সিং এর মানেই হলো স্বাধীন ভাবে কাজ করা বা মুক্তপেশা। এটাও এক ধরণের ব্যবসা বললে আমি ভুল হবো না।

এই প্রক্রিয়াতে লোকেরা, অনলাইন বিভিন্ন সূত্রের (sources) মাধ্যমে কাজ খুজে নিজের ইচ্ছে অনুযায়ী কাজ করেন। এক্ষেত্রে, যারা এভাবে স্বাধীন হয়ে freelancing এর কাজ করেন, তাদের “Freelancer” বলা হয়।

আজ, ইন্টারনেট, সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইট গুলোর মাধ্যমে, এই ফ্রিল্যান্সাররা নানান ধরণের কাজ, প্রজেক্ট বা সার্ভিস খুঁজে, সেগুলো তারা তাদের ক্লায়েন্টসদের জন্য নির্ধারিত সময়ে পুরো করছেন। এবং, কাজ বা প্রজেক্ট পুরো করার বিনিময়ে তাদের ক্লায়েন্টরা তাদেরকে টাকা দিচ্ছেন।

অবশ্যই, আপনি যেই প্রজেক্ট বা কাজ করবেন বলে ভাবছেন, তার জন্য কত টাকা নিবেন, সেটা আপনার ক্লায়েন্ট (client) এর সাথে আগেই ঠিক করে নিতে পারবেন। এবং, সঠিক ভাবে কাজ শেষ হওয়ার পর, আপনার টাকা আপনাকে দিয়ে দেওয়া হবে।

এই মাধ্যমে কাজ করার সুবিধে অনেক। ফ্রিল্যান্সিং এর কাজে আপনি নিজেই ঠিক করতে পারবেন যে, আপনি কতটা সময় কাজ করতে চান, কতটুকু কাজ করতে চান এবং এই কাজ আপনি পার্ট টাইম (part-time) করবেন না ফুল টাইম (full-time).

তাছাড়া, ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে নেওয়া কাজ গুলি করার জন্য আপনার কোনো বিশেষ কোনো জায়গার প্রয়োজন হবে না। কারণ, প্রায় সব ধরণের কাজ করার জন্য আপনার কেবল একটি ল্যাপটপ (laptop) বা কম্পিউটারের (computer) এবং তার সাথে ইন্টারনেট কানেক্শনের প্রয়োজন।

তাই, সবটাই আপনি নিজের ঘরে বসে খুব সহজেই করতে পারবেন ।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *